বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা বিএনপির অপর পক্ষের নেতা ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মেহেদী হাসান খান বলেন, দুর্বৃত্তরা আমতলা সড়কের কার্যালয়ের বাইরে হামলা চালিয়ে সাইনবোর্ড ও জানালার কাচ ভাঙচুর করে।

জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মনিরুল ইসলাম বলেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে নেতা–কর্মীরা ইউসুফ কমিশনার সড়কের কার্যালয়ে ভাঙচুর করেন। এ ঘটনায় বিএনপির অপর পক্ষের ইন্ধন থাকতে পারে।

এদিকে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্যসচিব শাহাদাৎ হোসেনের একটি ভিডিও বার্তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়েছে। সেখানে তিনি অভিযোগ করেন, ‘সরকারদলীয় স্লোগান’ দিয়ে কার্যালয়ে হামলা চালানো হয়েছে। এই বক্তব্যের প্রতিবাদে সোমবার রাত সাড়ে আটটার দিকে জেলা ছাত্রলীগের নেতা–কর্মীরা শহরের ফায়ার সার্ভিস মোড়ে প্রতিবাদ সভা করেছেন।

বিএনপির অভিযোগের বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ‘এ হামলার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। জেলা বিএনপির বিবদমান দুটি গ্রুপের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে এ হামলার ঘটনা ঘটতে পারে।’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ দেয়নি। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন