বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালত সূত্র জানায়, নারীর প্রতি অমর্যাদাকর, অশালীন বক্তব্য ও বিদ্বেষ সৃষ্টি করার অভিযোগে মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে মানহানির মামলার আবেদন করা হয়। মামলায় যে অভিযোগ আনা হয়েছে, তা আদালতের ভৌগোলিক এলাকার বাইরের ঘটনা ও আবেদনকারী এ ঘটনায় সরাসরি সংক্ষুব্ধ হওয়ার সুযোগ নেই বলে আদালত মামলার আবেদন খারিজ করে দেন।

সম্প্রতি নাহিদ রেইনস নামের একটি ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে এসে খালেদা জিয়ার নাতনিকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করেন মুরাদ হাসান। এরপর এক নায়িকার সঙ্গে তাঁর আপত্তিকর কথোপকথনের একটি অডিও ফাঁস হয়। এ নিয়ে সমালোচনার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী মুরাদকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন। ৭ ডিসেম্বর পদত্যাগ করেন মুরাদ।

বাদীর আইনজীবী ঝালকাঠি জেলা বিএনপির সদস্যসচিব শাহাদাত হোসেন জানান, মামলার আবেদন গ্রহণ না করায় তাঁরা সংক্ষুব্ধ। এ ব্যাপারে উচ্চ আদালতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাঁরা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন