default-image

রাজবাড়ী সদর উপজেলার একটি গ্রামে এক নারীকে ঝাড়ফুঁকের কথা বলে কথিত কবিরাজ ও তাঁর সহযোগী ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় করা মামলায় গ্রেপ্তার দুজন শুক্রবার বিকেলে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

গ্রেপ্তার দুজন হলেন কথিত কবিরাজ আবদুল মান্নান গায়েন ওরফে মান্নান কবিরাজ (৫২) এবং তাঁর সহযোগী ফারুক বিশ্বাস। মান্নানের বাড়ি রায়নগর ও ফারুকের বাড়ি চরবাগমারা গ্রামে।

রাজবাড়ী সদর থানা সূত্রে জানা যায়, ওই নারী শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। পল্লিচিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খান। কিন্তু সুস্থ হননি। পরে ওই নারীর মা বিষয়টি মান্নান কবিরাজকে জানান। কবিরাজ তাঁদের তেমাথায় (তিন রাস্তার মিলনস্থল) নিয়ে ঝাড়ফুঁক করলে সমস্যা দূর হবে বলে আশ্বস্ত করেন। এরপর মান্নান ও ফারুক গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই নারীকে চরবাগমারা মাঠের মধ্যে নিয়ে যান। সেখানে ওই নারীকে দুজন পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করেন।

বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় ওই নারী দুজনকে আসামি করে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজবাড়ী সদর থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। পরে সন্ধ্যায় দুজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা স্বপন কুমার মজুমদার বলেন, শুক্রবার বিকেলে আসামি দুজনকে রাজবাড়ীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুমন হোসেনের আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় তাঁরা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তাঁদের কারাগারে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন