স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে পিতার রেখে যাওয়া সম্পত্তি নিয়ে বড় ভাই ফজলুর রহমানের সঙ্গে ছোট ভাই হাফিজুর রহমানের বিরোধ চলছিল। এরই জেরে আজ দুপুরে পার্শ্ববর্তী বারোবাজারে ছোট ভাই হাফিজুর রহমানের হোমিও ফার্মেসিতে যান বড় ভাই ফজলুর রহমান। কথা–কাটাকাটির একপর্যায়ে ছোট ভাই হাফিজুর তাঁর টেবিলে থাকা একটি ছুরি দিয়ে বড় ভাই ফজলুরের বুকে আঘাত করেন। ছুরিকাঘাতে ফজলুর গুরুতর আহত হলে তাঁকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানকার চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

যশোর সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাহমিদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই ফজলুর রহমানের মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনার পর থেকে হাফিজুর রহমান পলাতক। এ বিষয়ে তাঁর মন্তব্য জানতে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রহিম মোল্লা প্রথম আলোকে বলেন, জমি নিয়ে বিরোধের কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে। তাঁরা ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিকে আটকের চেষ্টা করছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন