default-image

গাজীপুরের টঙ্গীর হিমারদিঘী কেরানীরটেক বস্তি এলাকা থেকে ছাত্রলীগ নেতা রেজাউল করিমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মাদক মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ বুধবার সকালে তাঁকে গাজীপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তার রেজাউল করিম (৩২) টঙ্গীর নোয়াগাঁও হিমারদীঘি এলাকার হোসেন আলীর ছেলে। তিনি টঙ্গী সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।

সম্প্রতি সাজ্জাদুল ইসলাম নামে এক ব্যবসায়ীর কাছে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন ছাত্রলীগের এই নেতা। ভুক্তভোগীর স্ত্রী শিল্পী আক্তার এই ঘটনায় বাদী হয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। সেই মামলায় ও মাদক ব্যবসার অভিযোগে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার ইলতুৎমিশ বলেন, রেজাউলের বিরুদ্ধে টঙ্গী পশ্চিম থানায় চাঁদাবাজির মামলা আছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে রেজাউলকে মহানগরের টঙ্গী পূর্ব থানাধীন দত্তপাড়া এলাকায় তাঁর নিজের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

উপকমিশনার ইলতুৎমিশ বলেন, একই দিন নবীন হোসেন নামে একজন মাদক কারবারিকে আটক করে পুলিশ। তাঁর কাছ থেকে ৭৭০ গ্রাম গাঁজা ও ৫০০টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে নবীন পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন যে ওই ৫০০ ইয়াবা বিক্রির উদ্দেশ্যে রেজাউল করিম তাঁকে সরবরাহ করেছেন। আজ সকালে রেজাউল করিম ও নবীন হোসেনকে গাজীপুর আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

২৫ এপ্রিল প্রথম আলোতে ‘মাদকে কোটিপতি ছাত্রনেতা’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদ প্রকাশের পর ওই ছাত্রলীগ নেতার বিষয়ে অনুসন্ধানে নামে পুলিশ। ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে তাঁর জড়িত থাকার প্রমাণ পায় পুলিশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন