বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ বছরের জুন থেকে জেলায় আক্রান্তের হার বেড়ে যায়। জুলাই মাসে আক্রান্তের পাশাপাশি মৃত্যুর হারও বেড়ে যায়। স্বাস্থ্য বিভাগের করোনাভাইরাস–সংক্রান্ত দৈনিক প্রতিবেদনে শুধু করোনা শনাক্ত হওয়ার পর যাদের মৃত্যু হয়েছে, শুধু সেই সংখ্যা এসেছে। করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণকারীদের সংখ্যা এই প্রতিবেদনে আসেনি।

বৃহস্পতিবার জেলায় আরও ১০৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন। ৩৪৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে এ রোগী শনাক্ত হয়। আক্রান্তের হার ৩১ দশমিক ৪৮ শতাংশ। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা হলো ১২ হাজার ৩৬৮। এঁদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ৫১২ জন। বর্তমানে ৫ হাজার ৮৫৬ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী রয়েছেন। এঁদের ৫ হাজার ৫৪৩ জন বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ ছাড়া টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের করোনা ডেডিকেটেড ওয়ার্ড, মির্জাপুরের কুমুদিনী হাসপাতালসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১১৯ জন করোনা রোগী ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন আবুল ফজল মো. শাহাবুদ্দিন খান জানান, সারা দেশে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করায় জেলায় সংক্রমণের হার কমছে। সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে সংক্রমণের হার আরও কমে আসবে বলে তিনি মনে করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন