default-image

কক্সবাজারের টেকনাফে গতকাল রোববার বাড়ি ফেরার পথে একদল দুর্বৃত্ত গুলি করে ও ছুরিকাঘাতে ইমান হোসেন (১৯) নামের এক তরুণকে হত্যা করেছে। তিনি উপজেলার পশ্চিম লেদার নূরালীপাড়ার বাসিন্দা আবদুর রহিমের ছেলে। তিনি একসময় র‍্যাবের সোর্স ছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

নিহত তরুণের পরিবারের দাবি, ইমান হোসেন র‍্যাবের সোর্স হিসেবে কাজ করতেন। এ জন্য তাঁকে হত্যা করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায়, গতকাল রাত সাড়ে আটটার দিকে বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন ইমান হোসেন। এ সময় একদল দুর্বৃত্ত তাঁকে গুলি করে ও এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে। দুর্বৃত্তরা কয়েকটি ফাঁকা গুলি ছুড়ে এলাকায় ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। পরে দুর্বৃত্তরা ইমান হোসেনকে টেনেহিঁচড়ে পাশের পাহাড়ের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে তাঁর বাবাসহ আত্মীয়রা গিয়ে জাফরের ঝিরি (ছড়া) এলাকা থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যান। পরে থানা-পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) জাহিদ হাসান লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

বিজ্ঞাপন

এসআই জাহিদ হাসান বলেন, নিহত তরুণের শরীরে একাধিক ক্ষতের চিহ্ন রয়েছে। তাঁর লাশের ময়নাতদন্ত করা হবে।

নিহত তরুণের বড় ভাই সাদ্দাম হোসেনের ভাষ্য, পূর্বশত্রুতার জের ধরে স্থানীয় বাসিন্দা আবদুল খালেক ওরফে ডাকাত খালেক, আবদুর রহমানসহ আরও ১০ থেকে ১২ জনের অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী গুলি করে ও ছুরিকাঘাত করে তাঁর ভাইকে হত্যা করেছে। ইমান সোর্স হিসেবে কাজ করায় ডাকাত খালেকের সঙ্গে তাঁর শত্রুতা বেড়ে যায়। এর জেরে তাঁর ভাইকে হত্যা করা হয়েছে বলে তাঁর দাবি।

জানতে চাইলে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, পূর্বশত্রুতার জের ধরে এক তরুণ নিহত হয়েছেন। তিনি একসময় র‍্যাবের সোর্স হিসেবে কাজ করতেন বলে জানা গেছে। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত তরুণের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন