বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শাহ আলম বলেন, বন্দুকযুদ্ধে নিহত ওই যুবকের ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় নিহত যুবকের পরিবারের লোকজন কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে গিয়ে তাঁর পরিচয় শনাক্ত করেন। পরে গতকাল রাতেই ওই যুবকের লাশ স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

বিজিবির দাবি, মোহাম্মদ মামুন ইয়াবা কারবারি ছিলেন। শনিবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ঝিমংখালীর ৭ নম্বর স্লুইসগেট-সংলগ্ন বেড়িবাঁধ এলাকায় বিজিবি ও ইয়াবা কারবারিদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ হয়।

পরে ওই এলাকায় তল্লাশি চালালে এক লাখ ইয়াবা, একটি এলজি ও গুলিবিদ্ধ এক যুবককে পাওয়া যায়। এ ঘটনায় বিজিবির দুই সদস্য আহত হয়েছেন। পরে গুলিবিদ্ধ ওই যুবককে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই ওই যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

জানতে চাইলে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাফিজুর রহমান বলেন, বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় নিহত যুবকের পরিচয় শনাক্ত করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে নিহত যুবকের লাশ গতকাল রাতেই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন