বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আটক দুজন হলেন টেকনাফ উপজেলার মোচনী এলাকার দ্বীন মোহাম্মদ (৪০) ও মিয়ানমার মংডু থানার শিয়া কনদং এলাকার মৃত লাল মিয়ার ছেলে বদি আলম (৩০)।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার। সঙ্গে ছিলেন উপপরিচালক লে. মো মুহতাসিম বিল্লাহ। শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার বলেন, মিয়ানমার থেকে মাদকের একটি বড় চালান দমদমিয়া এলাকার পাশের নাফ নদী দিয়ে পাচার হবে, এমন তথ্য পায় বিজিবি। ওই তথ্যের ভিত্তিতে বিজিবির দমদমিয়া সীমান্ত চৌকির দুটি বিশেষ টহল দল নাফ নদীতে কৌশলে অবস্থান নেয়। এ সময় তারা মিয়ানমার-বাংলাদেশ সীমান্ত থেকে আনুমানিক ৫০০ থেকে ৬০০ গজ দূরে নাফ নদী দিয়ে একটি কাঠের নৌকাকে বাংলাদেশের দিকে আসতে দেখে।

নৌকাটি জ্বালিয়ার দ্বীপের কাছাকাছি এসে পৌঁছালে বিজিবির টহল দল নৌকার মাঝিকে চ্যালেঞ্জ করেন। এ সময় নৌকার আরোহী বিজিবির চ্যালেঞ্জকে উপেক্ষা করে নৌকা ঘুরিয়ে মিয়ানমার সীমান্তের দিকে চলে যেতে থাকলে বিজিবির টহল দল সন্দেহভাজন নৌকাটিকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে থামানোর চেষ্টা চালায়। পরে বিজিবির টহল দল স্পিড বোট নিয়ে বিভিন্ন দিক থেকে ঘেরাও করে দুজন আরোহীসহ নৌকাটিকে আটক করতে সক্ষম হয়। আটক দুজনের মধ্যে একজন তালিকাভুক্ত বাংলাদেশি মানব পাচারকারী এবং অপরজন মিয়ানমারের নাগরিক।

পরে নৌকাটি তল্লাশি করে কম্বলের ভেতরে লুকানো অবস্থায় ৫ কোটি ৭৯লাখ ৬০ হাজার টাকা মূল্যমানের ১ কেজি ৩৬ গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ, ২০ হাজার ইয়াবা, ১টি বিদেশি পিস্তলসহ অন্য মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।

টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার বলেন, উদ্ধার করা অস্ত্র, ক্রিস্টাল মেথ, ইয়াবা, অন্য মালামালসহ আটক দুজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে। আটক ব্যক্তিদের টেকনাফ মডেল থানা-পুলিশে হস্তান্তরের প্রক্রিয়াধীন।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত মো. হাফিজুর রহমান বলেন, মাদক, অস্ত্রসহ আটক দুজনের বিরুদ্ধে মাদক, অস্ত্র ও বৈদেশিক নাগরিক আইনে মামলা করা হচ্ছে। আজ বিকেলের দিকে আদালতে পাঠানো হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন