বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ রোববার সকালে সোনাইমুড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. ইব্রাহীম খলিল অভিযুক্ত ট্রাকচালককে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, সাবরিনাকে চাপা দেওয়ার ঘটনায় তাঁর বাবা মর্তুজা ভূঁইয়া বাদী হয়ে গতকাল রাতে সোনাইমুড়ী থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় ট্রাকচালক সাহাব উদ্দিনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। আজ দুপুরে গ্রেপ্তার ট্রাকচালককে নোয়াখালীর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়েছে। মামলাটি লক্ষ্মীপুর চন্দ্রগঞ্জ হাইওয়ে থানার পুলিশ তদন্ত করবে।

সাবরিনা আক্তার সোনাইমুড়ী পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রামপুর এলাকায় গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ট্রাকচাপায় নিহত হন। তিনি সোনাইমুড়ী উপজেলার ৭ নম্বর বজরা ইউনিয়নের শিলমুদ জমদ্দার ভূঁইয়াবাড়ির মর্তুজা ভূঁইয়ার মেয়ে। তিন বোনের মধ্যে সাবরিনা সবার বড়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী সাবরিনা গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা যাওয়ার উদ্দেশে সোনাইমুড়ী পৌরসভার পশ্চিম রামপুরা এলাকার নানাবাড়ি থেকে রওনা হন। এ সময় বাড়ির সামনের নোয়াখালী–কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়কের পূর্ব পাশ থেকে পশ্চিম পাশে যাওয়ার পথে কুমিল্লা থেকে নোয়াখালীগামী ইটবোঝাই ট্রাক তাঁকে চাপা দিলে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। ঘটনার পরপরই চালক পালিয়ে যান। তাৎক্ষণিক স্থানীয় বাসিন্দারা ঘাতক ট্রাকটি জব্দ করে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে সাবরিনার লাশ উদ্ধার করে এবং ট্রাকটি তাদের হেফাজতে নেয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন