default-image

কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় ইটবোঝাই ট্রাকটি সড়কের পাশে একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। গাছের চাপায় আটকা পড়েন চালক জিতেন্দ্র কর (৪৫)। কোনোভাবেই তিনি বের হতে পারছিলেন না। পরে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন গিয়ে গাড়ির সামনের অংশ কেটে তাঁকে বের করে আনেন। তবে চালকের বাঁ পা থেঁতলে গেছে। ঘটনাটি রোববার বিকেলে মৌলভীবাজার-বড়লেখা আঞ্চলিক মহাসড়কের কুলাউড়া উপজেলার চুনঘর এলাকায় ঘটে।

জিতেন্দ্র করকে গুরুতর আহত অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাঁর বাড়ি উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের পশ্চিম গুড়াভূঁই গ্রামে।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, ইটবোঝাই ট্রাকটি ব্রাহ্মণবাজার থেকে কুলাউড়ার দিকে যাচ্ছিল। বিকেল চারটার দিকে চুনঘর এলাকায় পৌঁছালে পেছন দিক থেকে আসা কাভার্ড ভ্যানটি এটিকে ধাক্কা দেয়। এ সময় ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ট্রাকের সামনের অংশ দুমড়েমুচড়ে যায়। চালক জিতেন্দ্র ভেতরে আটকা পড়ে যান। একই সময়ে কুলাউড়া সার্কেলসহ কুলাউড়া ও জুড়ী থানার পুলিশের কর্মকর্তারা মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সভা শেষে কর্মস্থলে ফিরছিলেন। পথে দুর্ঘটনাকবলিত ট্রাকটিকে দেখে তাঁরা নেমে চালককে উদ্ধারের চেষ্টা চালান। পরে কুলাউড়া ফায়ার সার্ভিসের লোকজনকে খবর দেওয়া হয়। ফায়ার সার্ভিসের লোকজন গিয়ে চালককে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে তাঁকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

বিজ্ঞাপন

কুলাউড়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন রাত ১০টার দিকে মুঠোফোনে বলেন, ‘গাছের সঙ্গে ধাক্কা খাওয়ায় চালকের শরীরের নিচের অংশ আটকা পড়ে গিয়েছিল। এ পরিস্থিতিতে গাড়ির সামনের অংশ কেটে তাঁকে বের করে আনি।’
কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, চালক জিতেন্দ্রের বাঁ পা থেঁতলে গেছে। তাই প্রাথমিক চিকিৎসার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে সিলেটে স্থানান্তর করা হয়।

কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাদেক কাওছার দস্তগীর বলেন, দুর্ঘটনার পর কাভার্ড ভ্যানসহ এটির চালককে কুলাউড়া থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ব্যাপারে কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন