বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কাজী সবুজ ও কর্মী–সমর্থকদের ভাষ্য, আজ সকাল থেকে কমলাপুর এলাকায় কাজী সবুজের পক্ষে তাঁর ভাই মেজবাউল কাজীসহ বেশ কয়েকজন নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেন। ওই এলাকায় প্রচারণা শেষ করে তাঁরা ডাসার ইউনিয়ন পরিষদে যাওয়ার পথে নৌকার প্রার্থী রেজাউল করিমের ভগ্নিপতি আবু বক্কর সিদ্দিক তাঁদের পথ রোধ করেন। পরে আবু বক্করের নেতৃত্বে রেজাউল করিমের কর্মী–সমর্থকেরা লাঠিসোঁটা দিয়ে তাঁদের ওপর হামলা চালান। এতে কাজী সবুজের কয়েকজন কর্মী–সমর্থক আহত হন। এ সময় একটি মোটরসাইকেলও ভাঙচুর করা হয়।

পরে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এদিকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বর্তমানে ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কাজী সবুজ অভিযোগ করে বলেন, তাঁর লোকজন প্রচারণায় নামলে নৌকার প্রার্থীর লোকজন তাঁদের লক্ষ্য করে হামলা চালান। এর আগেও নৌকার প্রার্থীর লোকজন হামলা চালিয়েছেন। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টির জন্যই নৌকার প্রার্থী এ ধরনের হামলা করছেন।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে রেজাউল করিম শিকদার বলেন, ‘আমার কোনো কর্মী–সমর্থক সবুজের লোকজনের ওপর হামলা চালায়নি। সবুজ মাদকাসক্ত। নির্বাচনে নিজের পরাজয় জেনে আমার নামে এমন অভিযোগ দিচ্ছে।’

জানতে চাইলে ডাসার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাসানুজ্জামান বলেন, নির্বাচনী প্রচারণার সময় আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র দুই প্রার্থীর সমর্থকেরা মুখোমুখি হলে তাঁদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে কয়েকজন আহত হয়েছেন। এরপর আবার দুই পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়াতে প্রস্তুতি নিচ্ছিল—এমন খবর পেয়েই পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালিয়েছে। এ সময় কয়েকটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে প্রায় ৩৫টি ঢাল, বল্লম-টেঁটা উদ্ধার করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন