বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম চিত্তরঞ্জন দাস (৩৮)। তিনি কুমিল্লা জেলার হোমনা উপজেলার রামকৃষ্ণপুর এলাকার রঞ্জন চন্দ্র দাসের ছেলে। বর্তমানে তিনি রাজধানীর আদাবর এলাকায় বসবাস করেন। সম্প্রতি চিত্তরঞ্জন দাস হিন্দু থেকে ধর্মান্তরিত হয়ে মুসলমান হয়েছেন, নাম পাল্টে রেখেছেন মো. সুমন।

গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম চিত্তরঞ্জন দাস (৩৮)। সম্প্রতি তিনি হিন্দু থেকে ধর্মান্তরিত হয়ে মুসলমান হয়েছেন, নাম পাল্টে রেখেছেন মো. সুমন।

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) জায়েদুল আলম বলেন, স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকারের কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তদন্তকাজ শুরু করে। প্রযুক্তির সহায়তায় অভিযান চালিয়ে প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চাঁদা চাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, তিনি আগে ঝুটের ব্যবসা করতেন। সেলুনের কাজও করেছেন কিছুদিন।

এর আগে গত শনিবার রাতে মুঠোফোনে ডিজিএফআই পরিচয়ে চাঁদা দাবির অভিযোগে তৈমুর আলম নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। লিখিত অভিযোগে তৈমুর আলম উল্লেখ করেন, তিনি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী। কয়েক দিন ধরে একটি বিশেষ গোয়েন্দা সংস্থার (ডিজিএফআই) লোক পরিচয় দিয়ে ০১৬১৮৭৪৪১১১ নম্বর থেকে তাঁর ব্যক্তিগত মুঠোফোন নম্বরে ফোন দিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা চাঁদা দাবি করা হচ্ছে।

তৈমুর আলম প্রথম আলোকে বলেন, ‘ওই ব্যক্তি আমাকে ফোন করে বলেন, ‘আমরা আপনার মনোনয়নপত্র বৈধ করে দিয়েছি, আমাদের টাকা দিতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘গত তিন দিন যাবৎ আমাকে ফোন করে টাকা চাওয়া হয়েছে। বাধ্য হয়ে আমি নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দিই।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন