বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনকালে ভোলার লালমোহন উপজেলার বদরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল হক বাদী হয়ে হাফিজ উদ্দীন আহমেদসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে মামলাটি করেন।

আদালত ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মামলার ২ নম্বর আসামি একই এলাকার মো. বাবুল হাওলাদারের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলেন বিএনপি নেতা হাফিজ উদ্দীন আহমেদ। ওই ফোনালাপে আপত্তিকর কথাবার্তা ছিল, যা দ্বারা সংসদ নির্বাচন ভন্ডুলের চেষ্টা করা হয়েছে। বিষয়টি পরবর্তী সময়ে গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ফরিদুল হক পরে মামলা করেন। মামলায় পুলিশ তদন্ত শেষে ছয় আসামিকে অব্যাহতি দিয়ে হাফিজ উদ্দীন আহমেদ ও বাবুল হাওলাদারকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। মামলাটি বর্তমানে বরিশালের সাইবার ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন।

২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনকালে উদ্দীন আহমেদসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে মামলাটি করেন ভোলার লালমোহন উপজেলার বদরপুর ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল হক।

জামিন পাওয়ার পর বিএনপি নেতা হাফিজ উদ্দীন আহমেদ বলেন, ২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচন অবৈধভাবে ভোট কারচুপির মাধ্যমে হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা হয়। তিনি বলেন, সরকার এ আইন প্রণয়ন করেছে শুধু বিরোধী দলকে দমন করার জন্য নয়, সরকারের বিরুদ্ধ মত এবং মানুষের মতের স্বাধীনতাকে হরণ করার জন্যও। সরকার এ আইন এখন সাংবাদিক ও সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধেও ব্যবহার করছে।

এদিকে বরিশাল নগরের রূপাতলী এলাকায় বাসে অগ্নিসংযোগের পৃথক মামলায় আজ সকালে নিয়মিত হাজিরা দেন বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও বরিশালের নগর সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার। বিএনপির দুই নেতার আদালতে হাজির হওয়াকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই বরিশাল জেলা জজ আদালত প্রাঙ্গণে দলীয় নেতা-কর্মীদের ভিড় ছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন