বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো আশিকুজ্জামান বলেন, রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিয়ে ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট করায় নাসিরের বিরুদ্ধে থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা হয়। ওই মামলায় নাসির উদ্দীনকে গ্রেপ্তারের পর আজ বিকেলে আদালতে হাজির করা হয়। ফরিদপুরের ৬ নম্বর আমলি আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজেস্টেট অরুপ কুমার বসাকের কাছে তিনি দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আদালতের নির্দেশে তাঁকে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আটঘর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মো. হাদিস মিয়া গতকাল বুধবার রাতে বিএনপি নেতা মো. নাসির উদ্দীনকে আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। ওই মামলায় অভিযোগ করা হয়, নাসির সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সম্পর্কে মানহানিকর তথ্য পোস্ট করেছেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সালথা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মিজানুর রহমান জানান, নাসির তাঁর ফেসবুক ওয়ালে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সম্পর্কে মানহানিকর তথ্য পোস্ট করে আসছেন বলে একটি লিখিত অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগ নেতা হাদিস মিয়া। তদন্ত করে ওই অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে তাঁর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়। পরে আজ ভোরে ইউনিয়নের কাকলিখোলা গ্রাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিএনপি নেতা মো. নাসির উদ্দীনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন