পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, একদিল মিয়া মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। তিনি প্রায়ই উপজেলার বিভিন্ন স্থানে একা ঘোরাফেরা করতেন। গতকাল শুক্রবার দুপুরের দিকে একদিল মিয়া বাড়ি থেকে বের হন। সর্বশেষ গতকাল সন্ধ্যায় স্থানীয় লোকজন কুটুরিকোনা এলাকায় তাঁকে চলাফেরা করতে দেখেন। রাতে আর তিনি বাড়ি ফেরেননি।

এরপর আজ সকাল নয়টার দিকে কুটুরিকোনা গ্রামের লোকজন মাদ্রাসার পাশের ডোবায় একটি লাশ ভাসতে দেখেন। খবর পেয়ে মদন থানা-পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে সকাল ১০টার দিকে লাশটি উদ্ধার করে।

জানতে চাইলে মদন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ফেরদৌস আলম বলেন, স্থানীয় লোকজন ও পরিবারের ভাষ্যমতে, একদিল মিয়া কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। নিহত একদিলের লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন