default-image

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার পোস্টকামুরী এলাকা থেকে গোড়াই ক্যাডেট কলেজ পর্যন্ত ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের প্রায় ১০ কিলোমিটার এলাকায় যানজট সৃষ্টি হয়েছে। মহাসড়কের গোড়াই এলাকায় চার লেন প্রকল্পের কাজ চলার পাশাপাশি আরিচা, শিমুলিয়া ফেরিঘাট দিয়ে যান চলাচল ব্যাহত হওয়ায় এই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও ভুক্তভোগী যানবাহন চালকেরা জানান, বৃহস্পতিবার গোড়াইয়ের নির্মাণাধীন আন্ডারপাস এলাকায় সৃষ্ট খানাখন্দ মেরামতের কাজ শুরু হয়। এরপর থেকে মহাসড়কের এক পাশ বন্ধ রাখায় অন্য পাশ দিয়ে যান চলতে থাকে। আরিচা ও শিমুলিয়া ঘাটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় দেশের দক্ষিণাঞ্চলের অধিকাংশ ট্রাক বঙ্গবন্ধু সেতু পার হয়ে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক দিয়ে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে যেতে শুরু করে। এ কারণে মহাসড়কে স্বাভাবিকের চেয়ে যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি হয়। বৃহস্পতিবার রাতে মহাসড়কের ওই এলাকায় থেমে থেমে যান চলতে শুরু করে। শুক্রবার সকালে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলেও গোড়াই এলাকার উভয় পাশে প্রায় তিন কিলোমিটার এলাকায় থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হয়। তবে বিকেলের দিকে হঠাৎ যানবাহনের চাপ বেড়ে যাওয়ায় যানজট বাড়তে থাকে।

সন্ধ্যা সোয়া ছয়টার দিকে মহাসড়কের বাওয়ার কুমারজানী এলাকায় প্রায় আধা ঘণ্টা অবস্থান করে দেখা যায়, টাঙ্গাইলসহ উত্তরাঞ্চলের দিকে যানবাহন চললেও ঢাকার দিকে যানবাহন একেবারে থেমে আছে।

বিজ্ঞাপন
default-image

মাগুরা থেকে ঢাকাগামী ট্রাকের চালক সেলিম মিয়া বলেন, আরিচা ফেরিঘাট দিয়ে তিনি নিয়মিত ঢাকায় যাতায়াত করেন। কিন্তু সেখানে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটায় বঙ্গবন্ধু সেতু পার হয়ে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক দিয়ে ঢাকা যাচ্ছেন।

বঙ্গবন্ধু সেতু এলাকা থেকে ট্রাক চালিয়ে ঢাকার উত্তরার উদ্দেশে যাচ্ছিলেন রবিন মিয়া। তিনি বলেন, তিনি একই স্থানে ট্রাক নিয়ে প্রায় ২০ মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে আছেন। দক্ষিণাঞ্চলের গাড়ি এই সড়ক দিয়ে চলাচল করায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গোড়াই হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, চলতি মৌসুমে বৃষ্টির কারণে গোড়াইয়ে নির্মাণাধীন আন্ডারপাস এলাকায় মহাসড়কে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে সংস্কারকাজ চলছে। এ ছাড়া শিমুলিয়া ও আরিচা ঘাটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটায় এই সড়কে যানবাহনের সংখ্যা হঠাৎ বেড়ে গেছে। এ কারণে যান চলাচলে কিছুটা ধীরগতি রয়েছে। তবে দ্রুত এ অবস্থার অবসান হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0