default-image

নরসিংদীর পলাশে কারখানার শ্রমিক এক তরুণীকে (২২) ধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ভুক্তভোগী ওই তরুণী নিজেই বাদী হয়ে পলাশ থানায় মামলা করেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুই তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার দুজন হলেন নরসিংদীর পলাশের ঘোড়াশাল পৌর এলাকার টেকপাড়া গ্রামের ইমরান হোসেন (২২) ও ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা থানার বাউশখালী গ্রামের আরিফ মিয়া (২০)। গ্রেপ্তারের পর আজ বিকেলে তাঁদের দুজনের পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে নরসিংদীর আদালতে তোলা হলে বিচারক আগামী রোববার তাঁদের রিমান্ড শুনানির দিন নির্ধারণ করে জেলহাজতে পাঠান।

গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই তরুণীর ভাড়া বাসায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ওই সময় তিনি ঘর থেকে বাইরে বেরিয়ে শৌচাগারে গিয়েছিলেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই তরুণীর ভাড়া বাসায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ওই সময় তিনি ঘর থেকে বাইরে বেরিয়ে শৌচাগারে গিয়েছিলেন। শৌচাগার থেকে বের হওয়ার পর ইমরান হোসেন, আরিফ মিয়া ও সেলিম মিয়া নামের তিনজন মুখ চেপে ধরে তাঁকে জোর করে একটি কক্ষে নিয়ে যান। এ সময় ইমরান হোসেন তাঁকে ধর্ষণ করেন। পরে সেলিম মিয়াও তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। তরুণীর চিৎকারে একপর্যায়ে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে তাঁরা তিনজন পালিয়ে যান।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, এ ঘটনার পরপরই অচেতন অবস্থায় ওই তরুণীকে উদ্ধার করেন স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে আজ সকালে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় ঘোড়াশাল পৌর এলাকার নতুনপাড়া গ্রামে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় ইমরান হোসেন ও আরিফ মিয়াকে আটক করেন পলাশ থানার উপপরিদর্শক মীর সোহেল রানা।

জানতে চাইলে পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দীন জানান, গ্রেপ্তার দুজনের পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে নরসিংদীর আদালতে তোলা হলে বিচারক তাঁদের জেলহাজতে পাঠিয়েছেন। অন্যদিকে ভুক্তভোগী ওই তরুণীর স্বাস্থ্য পরীক্ষাও আজ সম্পন্ন হয়েছে। অভিযুক্ত অপর আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন