default-image

ময়মনসিংহের তারাকান্দায় কিশোর সিয়াম হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচন করেছে ডিবি পুলিশ। ভ্যান ছিনতাই করার জন্য তাকে হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা ডিবি পুলিশের সংবাদ বিজ্ঞপ্তি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ জানায়, ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি উচ্চবিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র মো. সিয়াম। সে পড়ালেখার পাশাপাশি অর্থ উপার্জনের জন্য ভাড়ায় ব্যাটারিচালিত ভ্যান চালাত। গত শুক্রবার দুপুরে সে ভ্যান নিয়ে বের হয়। কিন্তু রাতে সে বাসায় ফেরেনি। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও পরিবারের লোকজন তার সন্ধান পাননি। শনিবার সকালে তারাকান্দা উপজেলার কাটালিবাজার সেতুর নিচে সিয়ামের লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় গত শনিবার বিকেলে সিয়ামের বাবা মকবুল হোসেন বাদী হয়ে তারাকান্দা থানায় মামলা করেন। মামলার পর তদন্ত শুরু করে জেলা গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পুলিশ। ডিবি পুলিশ প্রযুক্তির সহায়তায় সিয়াম হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে দুজনকে গ্রেপ্তার করে।

বিজ্ঞাপন

জেলা ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ জানান, সিয়াম হত্যাকাণ্ডে জড়িত অভিযোগে দুই কিশোরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে তারা  জানিয়েছে, তারা যাত্রীবেশে ২০০ টাকা ভাড়া দেবে বলে সিয়ামের ভ্যানে ওঠে এবং তারাকান্দার বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাঘুরি করে। ঘোরাঘুরির একপর্যায়ে তারা সন্ধ্যায় কৌশলে সিয়ামকে শ্বাসরোধে হত্যা করে কাটালিবাজার সেতুর নিচে সিয়ামের লাশ ফেলে রেখে ভ্যান নিয়ে পালিয়ে যায়। এরপর তারা ময়মনসিংহ মহানগরীর পাটগুদাম রেলির মোড় এলাকায় একটি গ্যারেজে ৫ হাজার ৯০০ টাকায় ভ্যান বিক্রি করে ঢাকায় পালিয়ে যায়।

জেলা ডিবির ওসি শাহ কামাল আকন্দ আরও বলেন, সিয়াম হত্যায় জড়িত দুই কিশোরের সঙ্গে ছিনতাই হওয়া ভ্যানের ক্রেতা রতন কুমার সাহাকেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন