বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জ্ঞানেন্দ্রনাথ বসাক ও তাঁর সমর্থকদের ভাষ্য, গতকাল সন্ধ্যায় জ্ঞানেন্দ্রনাথ বসাকের সমর্থক আবদুল আজিজ পোস্টার নিয়ে ভোগলমান চারমাথা মোড়ে যান। এ সময় আবদুল কুদ্দুসের দুই ছেলে ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন ও জাহাঙ্গীর হোসেনের নেতৃত্বে নৌকার কর্মী–সমর্থকেরা আবদুল আজিজের ওপর হামলা করেন। এ সময় তাঁকে রক্ষা করতে গিয়ে আরেক কর্মী আবদুল লতিফও হামলার শিকার হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং আজিজ ও লতিফকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

জ্ঞানেন্দ্রনাথ বসাক অভিযোগ করে জানান, নৌকা প্রার্থীর লোকজন তাঁর কর্মী-সমর্থকদের নানাভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। পোস্টার টাঙাতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে গতকাল সন্ধ্যায় তাঁর কর্মীদের ওপর নির্মমভাবে হামলা চালানো হয়েছে।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে আবদুল কুদ্দুস বলেন, ‘আমি সারা দিন উপজেলা সদরে ছিলাম। কী ঘটেছে জানা নেই। খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসেছি। আমাকে বিতর্কিত করতে প্রতিপক্ষ এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।’

তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফজলে আশিক প্রথম আলোকে জানান, ঘটনার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছে। এখন পরিবেশ শান্ত রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন