বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরে ইজারাদার ও গরু ব্যবসায়ীদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। দুপুরে হাট শেষ হলে বাজার কমিটির সভাপতি ও পাটিখালঘাট ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মোস্তাফা কামাল ঘটনা মীমাংসার জন্য দুই পক্ষকে নিয়ে বাজারের একটি টংঘরে বসেন। এতে স্থানীয় লোকজনও উপস্থিত হন।

ইউসুফ তালুকদারের অভিযোগ, সালিসের শুরুতে উভয় পক্ষের বক্তব্য শোনার আগেই মোস্তফা মেম্বার তাঁর লোকজনকে বলেন, ‘ওদের এখনো সুস্থ রাখছো?’ এ কথার বলার মূহূর্তের মধ্যে মেম্বারের লোকজন চড়াও হয়ে বেধড়ক পিটিয়ে তাঁদের জখম করেন। এ সময় ছোট ছেলে রাসেলের কোমরে বাঁধা ২ লাখ ৬০ হাজার টাকাসহ একটি ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে যান মেম্বারের লোকজন। এরপর অবিক্রীত দুটি গরুও (একটি লাল এবং একটি কালো) নিয়ে গেছেন হামলাকারীরা, যার মূল্য প্রায় ২ লাখ ২০ হাজার টাকা।

ইউসুফ তালুকাদারের ছেলে ফুল মিয়া জানান, ‘এই মরিচবুনিয়া বাজারের গরুর হাটটি মেলানোর জন্য আমার বাবা অনেক শ্রম দিয়েছেন। প্রতি হাটে আমরা ২৫ থেকে ৩০টি গরু নিয়ে আসি। হয়তো এটা অনেকের চোখে লাগছে। আমাদের টাকাপয়সা হাতিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিতভাবে মোস্তফা মেম্বার ও তার লোকজন গরুর মতো পিটিয়ে আহত করে।’

বাজার কমিটির সভাপতি ও ইউপি সদস্য মোস্তফা কামাল বলেন, তিনি ইজারাদারের মাধ্যমে খবর পেয়ে বাজারে এসে উভয় পক্ষকে নিয়ে মীমাংসার জন্য বসলে বৈঠকের মধ্যেই উত্তেজিত হয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সংষর্ষ হয়। পরে তিনি ও তাঁর লোকজন অনেক কষ্টে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। গরু ও টাকা ছিনতাইয়ের খবর তিনি জানেন না।

কাঁঠালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পুলক চন্দ্র রায় জানান, মরিচবুনিয়া বাজারের গরু ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংঘর্ষের মৌখিক অভিযোগ পেয়েছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন