বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দৌলতদিয়া ফেরিঘাট থেকে গোয়ালন্দ বাজার পদ্মার মোড় পর্যন্ত ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে প্রায় ছয় কিলোমিটার ঢাকামুখী যানবাহনের দুটি সারি দেখা যায়। বিপরীত দিকে নদী পাড়ি দিয়ে আসা দক্ষিণাঞ্চলগামী গাড়ির সারি ছিল ফেরিঘাট থেকে ওয়াজেদ চৌধুরী টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ পর্যন্ত প্রায় চার কিলোমিটার।

ঢাকামুখী পরিবহনের বেশির ভাগই ছিল পণ্যবাহী। এর অধিকাংশ বৃহস্পতিবার রাতে বা পরদিন শুক্রবার ফেরিঘাট থেকে প্রায় ১৩ কিলোমিটার দূরে গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় আটকা ছিল। দুই-তিন দিন আটকে থাকার পর রোববার রাতে যানগুলো ফেরি পার হওয়ার জন্য ছেড়ে দেওয়া হলেও ঘাটের যানজটে ১২-১৩ ঘণ্টা ধরে আটকে আছে।

যশোর থেকে আলকাতরা বোঝাই করে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশে গত শনিবার দুপুরে রওনা দেন ট্রাকচালক বিকাশ সাহা। সোমবার দুপুরে ফেরিঘাট থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে গাড়ির সারিতে আটকে ছিলেন। বিকাশ সাহা বলেন, ‘যাত্রীবাহী বাস আগে পার হওয়ার পর পণ্যবাহী গাড়ি ফেরিতে ওঠার সুযোগ দিচ্ছে। এতে মনে হচ্ছে না আজ (সোমবার) রাতেও নদী পার হতে পারব।’

অভিযোগ রয়েছে, পণ্যবাহী গাড়ির চাপ থাকায় স্থানীয় প্রভাবশালী দালালদের তৎপরতাও বেড়ে গেছে। ঘাট এলাকা পারাপারের ক্ষেত্রে নির্ধারিত ভাড়ার সঙ্গে আরও দ্বিগুণ অর্থ দিয়ে দালালের মাধ্যমে টিকিট কাটতে বাধ্য হচ্ছেন পণ্যবাহী গাড়ির চালকেরা। বিশেষ করে তরমুজসহ বিভিন্ন ধরনের ফল, মাছ, সবজি ও কাঁচা পচনশীল পণ্যের গাড়ি থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। তবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতি বুঝে দালালেরা সক্রিয় থাকেন।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া কার্যালয় থেকে জানা গেছে, রোববার সকাল ছয়টা থেকে সোমবার সকাল ছয়টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় যাত্রীবাহী পরিবহন ৭৭২, পণ্যবাহী ৮৯১, ছোট বা ব্যক্তিগত গাড়ি ছিল ৩ হাজার ৩৮৮টি ও মোটরসাইকেল পার হয়েছে ১ হাজার ৯৬টি।

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক শিহাব উদ্দিন বলেন, বর্তমানে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে ছোট-বড় ২০টি ফেরি চলছে। মাঝেমধ্যে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিলে এক-দুটি ফেরি সাময়িক সময়ের জন্য নোঙর করে রাখা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন