default-image

রাজশাহীর বাগমারার ঝিকড়া ইউনিয়নের নামকান গ্রামের চার হতদরিদ্র ব্যক্তির নাম আছে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির তালিকায়। তবে বিষয়টি তাঁরা জানতেই পেরেছেন তিন বছর পর। এ সময়ে তাঁরা এক কেজিও চাল ১০ টাকা দরে কিনতে পারেননি। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সাবেক এক ইউপি সদস্যের ১২ হাজার টাকা জরিমানা হয়েছে।

নামকান গ্রামের আক্কাছ আলী, লোকমান আলী, সাহারা বিবি ও আবদুল আজিজের ক্ষেত্রে ঘটেছে এই বঞ্চনা। হতদরিদ্র এই ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির তালিকায় নাম ওঠাতে তাঁরা ২০১৬ সালে তৎকালীন ইউপি সদস্য খোদা বকসের কাছে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি ও ছবি জমা দেন। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও তথ্য সরবরাহের পর নির্দিষ্ট সময়ে তাঁদের নাম তালিকাভুক্ত করা হবে বলে জানানো হয়। ওই বছরের ১৩ অক্টোবর থেকে স্থানীয় ডিলার আওয়ামী লীগ নেতা আবু হেনার মাধ্যমে কর্মসূচির চাল বিক্রি শুরু হয়। কিন্তু ওই চারজনের ভাগ্যে চাল জোটেনি। নাম তালিকাভুক্ত হয়নি জানিয়ে ইউপি সদস্য ও ডিলার তাঁদের ফিরিয়ে দেন।

এদিকে চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে আবার হতদরিদ্রের নাম তালিকাভুক্ত করা হবে, এমন খবর জানতে পারেন ওই চার ব্যক্তি। তাঁরা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেন। পুনরায় জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি ও ছবি দেন। তখন যাচাই-বাছাইয়ের সময় দেখা যায় , তাঁদের নাম ২০১৬ সাল থেকেই তালিকাভুক্ত। তাঁদের নামে নিয়মিতই ১০ টাকা কেজি দরের চাল কেনা হচ্ছে। পরে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে গেলে ধরা পড়ে, ওই চারজনের নামে বরাদ্দ চাল অন্য কেউ কিনছেন। বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর বুধবার তৎকালীন ইউপি সদস্য খোদা বকসের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ দেন ভুক্তভোগী ব্যক্তিরা।

অভিযোগ পাওয়ার পর সাবেক ইউপি সদস্য ও অভিযোগকারীদের নিজ দপ্তরে ডাকেন ইউএনও। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাঁরা ইউএনওর দপ্তরে উপস্থিত হন। এ সময় সাবেক ইউপি সদস্য খোদাবকস ওই চারজনের কার্ড নিজের কাছে রেখে চাল উত্তোলনের বিষয়টি স্বীকার করেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাঁর ১২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সাবেক ইউপি সদস্য খোদাবকস অভিযোগের বিষয়ে সরাসরি কোনো মন্তব্য করতে চাননি। তিনি ডিলারের ঘাড়ে দায় চাপানোর চেষ্টা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক বাগমারার ইউএনও শরিফ আহম্মেদ বলেন, এখন থেকে ওই চারজন নিয়মিত কর্মসূচির আওতায় ১০ টাকা কেজি দরের চাল কিনতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0