পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্টে আজ রোববার দুপুরে বাইসাইকেল অভিযানের উদ্বোধন করা হয়
পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্টে আজ রোববার দুপুরে বাইসাইকেল অভিযানের উদ্বোধন করা হয়প্রথম আলো

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া থেকে কক্সবাজারের টেকনাফ পর্যন্ত বাইসাইকেল অভিযান শুরু করেছে সেনাবাহিনীর একটি দল। আজ রোববার দুপুরে তেঁতুলিয়ার বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্টে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এই অভিযানের উদ্বোধন করেন সেনাবাহিনীর ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও রংপুর এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল নজরুল ইসলাম। এতে অংশ নিচ্ছেন সেনাবাহিনীর ১০০ জন সদস্য।

তেঁতুলিয়ার বাংলাবান্ধা থেকে যাত্রা শুরু করার সময় লাল–সবুজের পোশাকে সজ্জিত সেনাসদস্যদের রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে থাকা স্থানীয় লোকজন পতাকা নেড়ে ও হাততালি দিয়ে তাঁদের অভিনন্দন জানান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেজর জেনারেল নজরুল ইসলাম বলেন, এই সাইকেল অভিযান মুজিব বর্ষ উদযাপনের একটি অংশ। এর মাধ্যমে আবারও বলতে চাই, বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও অখণ্ডতা রক্ষার ক্ষেত্রে এবং সার্বভৌমত্ব রক্ষার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অতীতের মতো জনসাধারণের আস্থার একটি স্থান এবং এই অর্পিত দায়িত্ব যেকোনো মূল্যে পালন করে যাবে। দেশের সার্বিক কল্যাণে জাতির জনকের স্বপ্ন বাস্তবায়নে বাংলাদেশের সরকারপ্রধানের যেকোনো উদ্যোগকে সেনাবাহিনী অত্যন্ত দৃঢ়তার সঙ্গে অত্যন্ত সচল ও  সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য অবদান রাখবে। সেনাবাহিনীর ওপর অর্পিত দায়িত্ব যেখানে যখন যেভাবে প্রয়োজন হবে, তা পালন করা হবে।

বিজ্ঞাপন

এ সময় জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, পঞ্চগড় ১৮ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল খন্দকার আনিসুর রহমানসহ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্ট থেকে রওনা হয়ে দেশের ১০টি স্থানে যাত্রা বিরতি করে আগামী ৩ ডিসেম্বর টেকনাফে পৌঁছাবেন সেনাবাহিনীর এই সাইক্লিস্টরা। ওই দিন সেখানে আনুষ্ঠানিকভাবে বাইসাইকেল অভিযান সমাপ্ত হবে। একই সঙ্গে একাত্তরের চেতনাকে ধারণ করার জন্য সব সময় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৭১ জন সাইক্লিস্ট অপরাজেয় বাইসাইকেল অভিযান অব্যাহত রাখবে বলে আয়োজকেরা জানান।

মন্তব্য পড়ুন 0