বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রথম আলো: একসময় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে সেবাগ্রহীতারা এসে নানা ধরনের হয়রানির শিকার হতেন বলে অভিযোগ। এখনকার অবস্থা কেমন?

আবদুস ছালাম: আগের যেকোনো সময়ের তুলনায় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের পরিবেশ অত্যন্ত সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন। এখান কেউ হয়রানির শিকার হন না। আমরা সিটিজেন চার্টার টাঙিয়ে দিয়েছি। কোন কক্ষে কোন ধরনের সেবা দেওয়া হয়, সেটি উল্লেখ রয়েছে। বোর্ডের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় করিডরে চেয়ার পেতে দেওয়া আছে। সেবাগ্রহীতারা সেখানে বসেন। কারও কাজে ধীরগতি থাকলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। ডিজিটাল সেবা দেওয়ার কারণে মানুষের ভোগান্তি কমে গেছে।

প্রথম আলো: ভবিষ্যতের পরিকল্পনা কী?

আবদুস ছালাম: ১৯৬২ সালের ২ নভেম্বর কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড প্রতিষ্ঠিত হয়। ৬০ বছর ছুঁইছুঁই এ প্রতিষ্ঠানের বয়স। কীভাবে আরও দ্রুততম সময়ে সেবা দেওয়া যায়, তা নিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে বৈঠক করব। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমরা কাজ করব।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন