বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক মাসুদ আলম ও আজিজুল হক জানান, লকডাউনে বাজার ভালো। পুলিশ সমস্যা না করলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দি টোলপ্লাজা থেকে ইলিয়টগঞ্জ পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার এলাকায় সারা দিন চালাতে পারলে কয়েক হাজার টাকা পাওয়া যায়।

দুপুর ১২টায় দাউদকান্দির ইলিয়টগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে কথা হয় ঢাকাগামী পিকআপ ভ্যানের চালক ইব্রাহিম খলিলের সঙ্গে। তিনি বলেন, লকডাউনের চতুর্থ ও পঞ্চম দিনে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল কমে গেছে এবং ছোট ছোট যানবাহন চলাচল বেড়েছে।

চান্দিনার নূরীতলা গ্রামের বাসিন্দা দীপক মজুমদার ও তাঁর স্ত্রী সুমা রানী মজুমদার বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অটোরিকশা চলাচল করায় জরুরি কাজে বের হলে গন্তব্যে পৌঁছাতে সমস্যা হয় না।

দাউদকান্দির ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সালেহ আহমেদ বলেন, লকডাউনে চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশ সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। যাত্রী ও চালকদের কাগজপত্র পরীক্ষা করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন