বিজ্ঞাপন

দাউদকান্দির হাসনাবাদ গ্রামের গৃহবধূ রুবি আক্তার বলেন, দিনের বেলা তাও যাতায়াত করা যায়। কিন্তু রাতে ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। অসুস্থ রোগী বা শিশুদের নিয়ে যাতায়াত করা বিপজ্জনক। স্থানীয়রা বলেন, যাতায়াতের সুবিধার্থে গ্রামবাসী পরিবারগুলো থেকে সামর্থ্য অনুযায়ী ২০০ থেকে ৫০০ টাকা উত্তোলন করে ভেঙে যাওয়া পাকা সেতুর পাশে গত ১ অক্টোবর একটি বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেছে। কিন্তু নদীর প্রবল স্রোতে বাঁশের সাঁকোটি তেমন টেকসই হয়নি।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) দাউদকান্দি উপজেলা কার্যালয়ের উপসহকারী প্রকৌশলী মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, প্রায় ১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি নতুন সেতু নির্মাণের দরপত্র আহ্বান ও কার্যাদেশ হয়েছে। গত ২৬ জুলাই মেসার্স এমইঅ্যান্ডডিসিএল (জেভি) নামের প্রতিষ্ঠানকে কাজ বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন