বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বৈঠক সূত্র জানায়, ১ ডিসেম্বরের বৈঠকে হলের বিভিন্ন সমস্যা ও তা থেকে উত্তরণের বিষয়ে আলোচনা হয়। সভায় হল ও ডাইনিং পরিচালনা, আসন বণ্টন ও ডাইনিং ব্যবস্থাপক নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রাধ্যক্ষের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত বলে গণ্য করাসহ বেশ কিছু দাবি উত্থাপন করা হয়। এসব দাবি বাস্তবায়িত না হলে প্রাধ্যক্ষ ও সহকারী প্রাধ্যক্ষরা অব্যাহতি দেবেন বলে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়।

ড. এম এ রশীদ হলের সহকারী প্রাধ্যক্ষ হামিদুল ইসলাম বলেন, স্যারের মৃত্যু সবাইকে নাড়িয়ে দিয়েছে। সবাই মনে করছেন, দাবিসমূহের বাস্তবায়ন হলে প্রভোস্টরা আরও চাপমুক্ত হয়ে কাজ করতে পারবেন।

হল সমন্বয় কমিটির ওই দিনের সভার সিদ্ধান্ত এখনো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে জমা দেওয়া হয়নি। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণবিষয়ক পরিচালক ইসমাঈল সাইফুল্যাহ প্রথম আলোকে বলেন, সভার খসড়া কার্যবিবরণী তৈরি করে হল সমন্বয় কমিটির সদস্যদের কাছে পাঠানো হয়েছে। দাবির কিছু সংযোজন–বিয়োজন হবে। আগামী দুই–এক দিনের মধ্যে প্রশাসনের কাছে সিদ্ধান্ত তুলে ধরা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন