default-image

টাঙ্গাইলের সখীপুরে দাম্পত্য কলহের জের ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মারামারিতে স্বামী নিহত হয়েছেন। আজ সোমবার বিকেলে উপজেলার ইছাদিঘী গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি শুরু করেছে।

নিহত ওই স্বামীর নাম কিতাব আলী (৪০)। তিনি উপজেলার ইছাদিঘী গ্রামের মৃত কেরামত আলীর ছেলে। নিহত কিতাব আলী ভাঙারির ব্যবসা করতেন। এ ঘটনায় কিতাবের তৃতীয় স্ত্রী হামিদা আক্তারকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ। তাঁদের ঘরে চার বছরের এক ছেলেসন্তান রয়েছে। কিতাব আলীর আগের দুই স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়েছে।

উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আবুল কালাম আজাদ বলেন, আজ বেলা তিনটায় কিতাব আলীর সঙ্গে তাঁর স্ত্রী হামিদা আক্তারের ঝগড়া শুরু হয়। একপর্যায়ে তাঁরা মল্লযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েন। একজন অপরজনকে কামড় দিতে থাকেন।

বিজ্ঞাপন

শেষ পর্যায়ে স্ত্রী তাঁর স্বামীর অণ্ডকোষে আঘাত করেন। এ সময় ঢলে পড়েন স্বামী। বেলা চারটার দিকে প্রতিবেশীরা আহত কিতাব আলীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে লাশ বাড়িতে নেওয়া হয়। সন্ধ্যায় গ্রামবাসী বিষয়টি পুলিশকে জানালে রাত সাড়ে ৯টায় লাশ উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মর্গে পাঠায়।

সখীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এ এইচ এম লুৎফুল কবির আজ সোমবার রাত সাড়ে ৯টায় প্রথম আলোকে বলেন, নিহত কিতাব আলীর স্ত্রী হামিদা আক্তারকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। লাশের বিভিন্ন স্থানে কামড়ের চিহ্ন রয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন