default-image

ঘরের ভেতরে সুসজ্জিত বক্সখাট। খাটের নিচে গর্ত। গর্তের নিচে প্লাস্টিকে মোড়ানো গাঁজার পাঁচটি প্যাকেট। প্যাকেটগুলোতে ১০ কেজি গাঁজা রাখা আছে। গর্তের মুখে লোহার ঢাকনা। তার ওপরে লাল কাপড় বিছানো। দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে গাঁজা ব্যবসায়ীরা গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য নিয়ে আসতেন দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার পূর্ব সাদিপুর (হেলেঞ্চাকুড়ি) এলাকার মজিবর রহমানের বাড়িতে। মজিবর তা লুকিয়ে রাখতেন বক্সখাটের নিচে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দিনাজপুর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল গতকাল শুক্রবার রাত ১১টার দিকে মজিবরের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মজিবরসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এ সময় পুলিশ ওই বাড়ি থেকে ১০ কেজি গাঁজা এবং গাঁজা বিক্রির ২৯ হাজার ৫০০ টাকা জব্দ করেছে। মামলা দায়েরের পর আজ শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আজ শনিবার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোমিনুল ইসলাম এসব তথ্য জানান।

বিজ্ঞাপন
default-image

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন কাহারোল উপজেলার পূর্ব সাদিপুর গ্রামের মো. মজিবর রহমান ওরফে গোয়াল (৫০), তাঁর ছেলে মো. পারভেজ হোসেন (১৯), একই গ্রামের আনারুল ইসলাম (২০) এবং কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া থানার নাগাইশ গ্রামের জুয়েল মিয়া (২৬), একই গ্রামের শাহ আলমের ছেলে মো. সুজন মিয়া (২৫) ও তাঁর স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার (২৪)। শেষের তিনজন গাঁজার চালান নিয়ে মজিবরের বাড়িতে অতিথি হিসেবে এসেছিলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোমিনুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যায় কুমিল্লা থেকে ট্রলিব্যাগে করে গাঁজার চালান নিয়ে আত্মীয় সেজে মজিবরের বাড়িতে আসেন তিনজন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত সাড়ে ১১টার দিকে গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই তিনজন, মজিবরসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে। মজিবর রহমানের নামে আগের তিনটি মামলা রয়েছে। এ ছাড়া গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের নামে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে নতুন করে মামলা করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন