default-image

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলায় ছাগল চুরির ‘অপবাদ’ দিয়ে গাছে বেঁধে দুই কিশোর ও এক তরুণকে নির্যাতনের মামলায় পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার দিবাগত রাতে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে তাঁদের আটক করা হয়। আজ সোমবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাঁদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

আটক ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার রামভদ্রপুর গ্রামের মৃত আজিম উদ্দীনের ছেলে আফজাল হোসেন (৫৫), মহসীন আলীর ছেলে শাকিব বাবু (২৫), আবদুল হালিমের ছেলে মমিনুল ইসলাম (২৮), মৃত ইউনুস আলীর ছেলে পলাশ হোসেন (২৮) এবং পূর্বজাফরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে শিপন ইসলাম (২৪)।

ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুল ইসলাম বলেন, গাছে বেঁধে এক শারীরিক প্রতিবন্ধীসহ তিনজনকে নির্যাতনের ঘটনায় গতকাল বিকেলে থানায় দুটি অভিযোগ দেন। পরে তা মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়। গতকাল রাতেই উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত তিনজনসহ মোট পাঁচজনকে আটক করা হয়। অন্যান্য আসামির গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গত শনিবার দুপুরে উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের রামভদ্রপুর বুদ্ধিজীবীর মোড়ে ছাগল চুরির ‘অপবাদ’ দিয়ে শারীরিক প্রতিবন্ধী তরুণ সৈয়দ শামীম হোসেন (১৮) এবং ১৬ ও ১৪ বছর বয়সী দুই কিশোরকে গাছে বেঁধে রড, পাইপ ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে জখম করেন স্থানীয় ব্যক্তিরা। চুরির স্বীকারোক্তি নিতে প্রকাশ্যে কিশোর তিনজনের পায়ে ইনজেকশনের সিরিঞ্জের সুচ পায়ের তালু ফুটিয়ে নির্যাতন চালানো হয়। এ ঘটনায় ভয়ে আরও দুই কিশোর পালিয়ে বেড়াচ্ছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

এ ঘটনায় গতকাল বিকেলে রামভদ্রপুর উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোস্তাকিম সরকার ওরফে বাবু মাস্টারসহ আটজনের বিরুদ্ধে থানায় দুটি অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী দুজনের বাবা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন