বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শনিবার দুপুরে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। সভা শেষে জেলা কমিটির প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ আব্বাছ উদ্দিন প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কার্যনির্বাহী কমিটির সভার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতেও একই তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদনের জন্য কমিটির খসড়া দপ্তর বিভাগে জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। একই সঙ্গে সিলেট সদর উপজেলা কমিটির সভাপতির মৃত্যুর কারণে সাধারণ সম্পাদকের পদও শূন্য ঘোষণা করে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠনের প্রস্তাব কেন্দ্রে অনুমোদনের জন্য পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী ২ অক্টোবর জেলা কমিটির বর্ধিত সভার আগে দুই উপজেলারই পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছেন নেতারা।

শনিবারের সভায় জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন। সভা সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান। সভার শুরুতে সদ্য প্রয়াত জেলা সভাপতি লুৎফুর রহমানের বিষয়ে শোকপ্রস্তাব উত্থাপন ও আলোচনা হয়। পরে বক্তব্য দেন সহসভাপতি সুজাত আলী রফিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন ইসলাম কামাল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো. মবশ্বির আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহফুজুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক আখতারুজ্জামান চৌধুরী, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক বেগম সামসুন্নাহার প্রমুখ।

সভার শেষ পর্যায়ে সংগঠনকে গতিশীল করতে আগামী ২ অক্টোবর বর্ধিত সভা করার সিদ্ধান্ত হয়। সম্মেলনে নতুন কমিটি গঠনের প্রায় বছরের মধ্যে এই প্রথম বর্ধিত সভা হতে যাচ্ছে। ২ অক্টোবর জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সেই সভার বিষয়টি কার্যকরী কমিটির সভায় সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হয়।

এ প্রসঙ্গে সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান প্রথম আলোকে বলেন, সংগঠনের কার্যক্রম আরও গতিশীল করতে জেলা আওয়ামী লীগের ১৩টি সাংগঠনিক উপজেলার জন্য ১৩টি সাংগঠনিক দল গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। বর্ধিত সভার আগে সাংগঠনিক দলগুলোর পর্যবেক্ষণ থেকে দলকে গতিশীল করার ভবিষ্যৎ কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে।

বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনের সময় সংগঠনবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগে ৩ সেপ্টেম্বর বহিষ্কার করা হয়েছিল ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আউয়াল কয়েসকে। তাঁর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কার্যনির্বাহী সভায় সেই বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। সভায় বলা হয়, অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় সর্বসম্মতিক্রমে তাঁকে স্বপদে বহাল রেখে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হলো।

উপনির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিজয়ে কার্যনির্বাহী কমিটির সভা থেকে আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর সর্বস্তরের নেতা-কর্মীকে অভিনন্দন জানানো হয়। পাশাপাশি উপনির্বাচন পরিচালনায় ২১টি ইউনিয়নে নির্বাচন তদারকির দায়িত্ব পাওয়া জেলার নেতাদের প্রতি আনুষ্ঠানিক কৃতজ্ঞতা জানানো হয়। সভায় সিলেট-৩ আসনের নবনির্বাচিত সাংসদ হাবিবুর রহমান কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বক্তব্য দেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন