বেলা ১১টায় শুরু হওয়া ‘দুই টাকায় আমেজ’ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন পাবনা-১ আসনের সাংসদ শামসুল হক, বেড়া পৌরসভা মেয়র আসিফ শামস, বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহা. সবুর আলী, বেড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার, উপজেলা সহকারী যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা কাজী ইমরান সাঈদ প্রমুখ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, পৌর এলাকার সায়ালপাড়া ঈদগাহ মাঠে বাজারের আদলেই তৈরি করা হয়েছে স্টল। প্যান্ডেলের নিচে বানানো সেই স্টলের টেবিলে থরে থরে সাজানো আটা, ডাল, সেমাই, চিনি, আলু, পেঁয়াজসহ বিভিন্ন পণ্য। সেখানে আসা নারী-পুরুষদের এসব পণ্য তুলে দিচ্ছে শিক্ষার্থীরা।

default-image

পৌর এলাকার শেখপাড়া মহল্লার বাসিন্দা রেখা খাতুন প্রথম আলোকে বলেন, ‘ঈদের আগে আটা-সেমাইসহ নানা জিনিস পায়া খুশি লাগত্যাছে। অভাবের সংসারে এই উপহারে ইট্টু হলিউ কষ্ট দূর হবি।’

শিক্ষার্থী সহযোগিতা সংগঠনের সভাপতি মেহেরাব হোসেন বলে, ‘টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে আমরা শুরু করেছিলাম। এখন অনেকেই আমাদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। সবার সহযোগিতা পেয়েই আমরা এভাবে অসহায় দরিদ্রদের পাশে দাঁড়াতে পারলাম।’

পাবনা-১ আসনের সাংসদ শামসুল হক বলেন, মানবসেবার অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করেছে বেড়ার শিক্ষার্থীরা। এটা দেশের সব শিক্ষার্থীকে অনুপ্রাণিত করবে বলে তাঁর বিশ্বাস।

ছয় থেকে সাত বছর আগে সরকারি বেড়া বিপিন বিহারী উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণির কয়েকজন শিক্ষার্থী মিলে শিক্ষার্থী সহযোগিতা সংগঠন নামের মানবকল্যাণমুখী সংগঠন তৈরি করে। তারা টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে অসহায়দের সহায়তা করে। মানুষের পাশে দাঁড়ানোয় তাদের উদ্যোগে এখন অনেক সচ্ছল ও ধনাঢ্য ব্যক্তিরা এগিয়ে আসছেন। বর্তমানে সংগঠনটির সঙ্গে বেড়া উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শতাধিক শিক্ষার্থী যুক্ত হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন