বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ পরিদর্শক সুমন বণিক প্রথম আলোকে বলেন, গত বুধবার তাঁকে কারাগার থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সীতাকুণ্ড থানায় আনা হয়। এরপর অর্থ আত্মসাৎ, আত্মসাতের টাকায় গাড়ি কেনাসহ নানা বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ সময় তিনি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন। তাঁর দেওয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করা হবে। এরপর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মামলার তদন্তের স্বার্থে তিনি এর বেশি কিছু বলতে রাজি হননি। মামলার তদন্তকাজ অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।
এর আগে গত সোমবার চট্টগ্রামের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফরিদা ইয়াসমিনের আদালত সামশুল ইসলামের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশ জানিয়েছে, আইআইইউসির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান থাকাকালে সামশুল ইসলাম ৫৫০ জন শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীর বেতন-ভাতা ও ভবিষ্যৎ তহবিলের প্রায় ১৫ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন—এমন অভিযোগ এনে গত ৫ আগস্ট সামশুল ইসলাম ও বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক উপাচার্য কে এম গোলাম মহিউদ্দিনসহ ট্রাস্টি বোর্ডের ১০ সদস্য, শিক্ষক ও কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক হুমায়ুন কবির মামলা করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন