default-image

শ্রমিক ইউনিয়নের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও রুট পারমিট ছাড়াই বাস চালানোর অভিযোগে বাস মালিক সমিতির ডাকা ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন শেষে তা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। নওগাঁ জেলে বাস মালিক সমিতি ও জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে আজ বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে ধর্মঘট স্থগিতের ঘোষণা দেয় বাস মালিক সমিত।

জেলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত বাস না চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। তবে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের আশ্বাস ও জনস্বার্থে চলমান ধর্মঘট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ঘোষণা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়। তিনি আরও বলেন, ‘শ্রমিকদের চাঁদাবাজি বন্ধে কঠোর অবস্থান নেওয়া হবে বলে বৈঠকে পুলিশ সুপার আশ্বাস দিয়েছেন। শ্রমিক ইউনিয়নের বাস চালানোর বিষয়টি ঝুলে থাকলেও জনস্বার্থে আমরা বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

নওগাঁর জেলা প্রশাসক হারুন-অর-রশীদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘পরিবহন খাতের দুটি পক্ষের দ্বন্দ্বের জেরে সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে কোনো দাবি আদায় করা যায় না, এটা সবাইকে বুঝতে হবে। এ জন্য আমরা আন্তরিকভাবে বাসমালিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহারের আহ্বান করেছি। তাঁরা সেই আহ্বানে সাঁড়া দিয়ে ধর্মঘট করার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় তাঁদের ধন্যবাদ জানাই।’

গতকাল বুধবার ও আজ বৃহস্পতিবার নওগাঁর অভ্যন্তরীণ সব রুটে কোনো বাস চলেনি। এ ছাড়া ঢাকাসহ আন্তজেলা বিভিন্ন রুটেও নওগাঁ জেলা বাস মালিক সমিতির কোনো বাস চলাচল করেনি। এর ফলে আন্তজেলা বাস চলাচল সীমিত। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়ে সাধারণ মানুষ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0