শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে জমি নিয়ে বিরোধে দুই পক্ষের সংঘর্ষে এক ইউপি সদস্যসহ দুজন নিহত ও তিনজন আহত হয়েছেন। এদিকে ছেলের মৃত্যুসংবাদ শুনে তাঁর মা হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। আজ বুধবার সকালে নালিতাবাড়ী উপজেলার রাজনগর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষে নিহত ব্যক্তিরা হলেন ঝিনাইগাতী উপজেলার গৌরীপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. জয়নাল আবেদীন (৫৫) ও নালিতাবাড়ী উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের রাজনগর হদিপাড়া গ্রামের মো. রিয়াজুল করিম (৬৫)। নিহত ইউপি সদস্য জয়নালের মৃত্যুসংবাদ শুনে মারা যান তাঁর মা জয়নবী বেগম (৯০)।

বিজ্ঞাপন
default-image

এদিকে এ ঘটনায় আহত ব্যক্তিরা হলেন জবান আলী (৩০), আবুল কালাম (৩৫) ও শাহাদাত হোসেন (৩২)। তাঁদের সবার বাড়ি নালিতাবাড়ী উপজেলার রাজনগর হদিপাড়া গ্রামে। তাঁদের শেরপুর জেলা সদর হাসপাতাল ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এক থেকে দেড় একর জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে নালিতাবাড়ী উপজেলার রাজনগর হদিপাড়া গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে জিয়াউল হকের সঙ্গে প্রতিবেশী ইয়াদ আলী ও মমিজল হকের বিরোধ ও মামলা-মোকদ্দমা চলছিল। আজ সকালে জিয়াউল হক ও তাঁর স্বজনেরা কয়েকজন শ্রমিক নিয়ে ওই বিরোধপূর্ণ জমিতে আমন বীজতলা করতে যান। এ সময় ইয়াদ আলী, মমিজল হক, রিয়াজুল করিম ও তাঁদের সহযোগীরা দা, লাঠি, ফলাসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে জিয়াউল হক ও তাঁর সহযোগীদের বাধা দেন। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় ঘটনাটি মীমাংসা করতে জিয়াউল হকের মামা ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন দ্রুত ঘটনাস্থলে আসেন। কিন্তু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায় এবং উভয় পক্ষের সংঘর্ষে ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন, রিয়াজুল করিমসহ পাঁচজন গুরুতর আহত হন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় এলাকাবাসী ও স্বজনেরা জয়নাল ও রিয়াজুলকে উদ্ধার করে প্রথমে জেলা সদর হাসপাতাল ও পরে আজ বেলা দেড়টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁদের মৃত ঘোষণা করেন। নিহত রিয়াজুল করিম ইয়াদ আলীর ছোট ভাই।

বিজ্ঞাপন

জয়নাল ও রিয়াজুল করিমের মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ঝিনাইগাতীর গৌরীপুর ইউপির চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান।

এদিকে আজ দুপুরে ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীনের মৃত্যুসংবাদ তাঁর বনগাঁও খন্দকারপাড়া গ্রামের বাড়িতে এসে পৌঁছালে তাঁর বৃদ্ধ মা জয়নবী বেগম হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে বাড়িতেই মারা যান। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
জয়নাল ও তাঁর মা জয়নবী বেগমের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজনগর ফাজিল মাদ্রাসার প্রভাষক ও ইউপি সদস্য জয়নালের চাচাতো ভাই মো. আবদুল মমিন।

বিজ্ঞাপন

নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বশির আহম্মেদ বলেন, তিনি ঘটনাস্থলে আছেন। এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়নি। পরিস্থিতি বর্তমানে পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0