বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ ও আদালত-সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, জান্নাতুল ফেরদৌসের দুই মেয়ে তানজিম আক্তার ও মারজিয়া আক্তার। এসএসসি পাস তানজিমের সঙ্গে মহব্বত হাওলাদারের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একপর্যায়ে এই সম্পর্কে অবনতি ঘটে।

এর জের ধরে অ্যাসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটান মহব্বত। তিনি ২০১৮ সালের ১৪ মে দিবাগত রাত দুইটার দিকে তানজিমদের বাড়িতে প্রবেশ করেন। এ সময় তানজিম ও তার বোন মারজিয়াকে অ্যাসিড নিক্ষেপ করেন।

অ্যাসিডে তানজিমের চোখ, মুখ, গলা, বুকসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান ঝলসে যায়। পরে ঢাকায় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মারজিয়ার গলা, কাঁধ, পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান অ্যাসিডে দগ্ধ হলেও প্রাণে বেঁচে যায়।

মামলার শুনানিকালে আসামি মহব্বত দোষ স্বীকার করেন। সাক্ষ্য–প্রমাণের ভিত্তিতে আদালতের বিচারক নূরুল আলম মোহাম্মদ নিপু বুধবার বিকেলে মামলার রায় ঘোষণা করেন। আসামি মহব্বতকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেওয়ার পাশাপাশি ১ লাখ টাকা জরিমানা করেন তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন