বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মৈত্রবাঁধা মহল্লার বাসিন্দা শহীদুল ইসলাম বলেন, সড়কের এমন দুরবস্থার কারণে এলাকার কয়েক শ মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এই সড়ক দিয়ে মসজিদ, বাজার ও স্কুল-কলেজে যেতে হয়। মাত্র দুই মিনিটের পথ, অথচ ২০০ ফুট বেহাল অংশের জন্য দেড় কিলোমিটার ঘুরে যেতে হয়।

পৌরসভার কয়েকজন বাসিন্দা জানান, প্রায় ২০ বছর আগে নির্মিত হয় সড়কটি। পৌর এলাকার ধানিয়াপট্টি মোড় থেকে মৈত্রবাঁধা মহল্লা হয়ে কানাইবাড়ী মোড় পর্যন্ত এই সড়কটি বেড়া উপজেলা শহরের বিকল্প সড়ক হিসেবে পরিচিতি পায়। সড়কটি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় শহরের ভেতর তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

গত শুক্রবার ধানিয়াপট্টি মোড় থেকে মৈত্রবাঁধা মহল্লার দিকে কিছুটা যেতেই সড়কে গর্ত দেখা যায়। প্রায় ২০০ ফুট অংশজুড়ে জমে আছে নোংরা পানি। এর পাশেই মো. মিল্টন নামে একজনের মনিহারির দোকান। তিনি বলেন, বছর দুয়েক ধরে সড়কটি এমন বেহাল। যানবাহন ও লোকজন যাতায়াত করতে না পারায় দোকানের বেচাকেনা একেবারেই কমে গেছে।

বেড়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী ফিরোজুল আলম বলেন, এই সড়কটির সংস্কারকাজের দরপত্র হয়ে ঠিকাদার পর্যন্ত নিয়োগ করা হয়েছে। বর্ষা মৌসুম ও বৃষ্টির কারণে কাজটি বিলম্বিত হচ্ছে। যত দ্রুত সম্ভব কাজ সম্পন্ন করার পরিকল্পনা আছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন