বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে ভোগড়া এলাকায় একই মালিকের অধীন অপর একটি কারখানার শ্রমিকেরা আজ সকাল ৮টায় প্রধান ফটকের সামনে কারখানা বন্ধের নোটিশ দেখতে পেয়ে বিক্ষুব্ধ হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। এতে মহাসড়কটির উভয় দিকে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। যাত্রীরা গাড়ি থেকে নেমে হেঁটে গন্তব্যে ছুটতে থাকেন।

পোশাকশ্রমিক আফজাল হোসেন বলেন, প্রতি মাসে বেতন পরিশোধ করার সময় এলেই কর্তৃপক্ষ নানা বাহানা শুরু করে। এ মাসেও একই রকম ঝামেলার সৃষ্টি করছে। তারা শ্রমিকদের অকারণেই ছাঁটাই করছে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার জাকির হোসেন বলেন, কারখানা কর্তৃপক্ষ ও শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে কারখানা কর্তৃপক্ষের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে কারখানা কর্তৃপক্ষ নোটিশে উল্লেখ করে, করোনা মহামারির কারণে আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় কারখানা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

বেলা দুইটায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা মহাসড়ক অবরোধ তুলে নিলেও কারখানা দুটি ফটকের সামনে বিক্ষোভ-মিছিল করেছিলেন তাঁরা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন