বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২১ ডিসেম্বর চিপস খাওয়ানোর কথা বলে শিশুটিকে নিজ বাড়িতে ডেকে আনেন ওই তরুণ। এ সময় ওই বাড়িতে কেউ ছিল না। বাড়ি ফাঁকা থাকার সুযোগ নিয়ে শিশুটিকে ওই তরুণ ধর্ষণ করেন। পরে রক্তক্ষরণ হয়ে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে নানাবাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে দ্রুত শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ওই শিশু বর্তমানে হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডের ওয়ান–স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন রয়েছে। হাসপাতালের ওসিসির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ প্রথম আলোকে বলেন, শিশুটির রক্তক্ষরণ বন্ধ হয়েছে। এখন সে অনেকটা শঙ্কামুক্ত।

এদিকে ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ওই তরুণ গা ঢাকা দিয়েছেন। দুপচাঁচিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আলী আজ বিকেলে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ওই শিশুর বাবা দুপচাঁচিয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই তরুণকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন