বিজ্ঞাপন

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হাচিনা বেগম গ্রামের মৃত হাফেজ হাওলাদারের স্ত্রী। এই দম্পতির পাঁচ সন্তান। হাচিনা দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বাড়িসংলগ্ন লোহালিয়া নদীর তীরে সন্তোষদি চরে দা নিয়ে হোগলা পাতা কাটতে যান। এ সময় নদীতে উঁচু জোয়ার চলছিল। ঘণ্টাখানেক পেরিয়ে গেলেও নদীর পাড় থেকে হাচিনা বেগম বাড়িতে না ফেরায় পরিবার ও স্থানীয় লোকজন নদীর পাড়ে খুঁজতে গিয়ে হাচিনা বেগমকে ভাসমান অবস্থায় দেখতে পান।

হাচিনা (৫৫) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বাড়িসংলগ্ন লোহালিয়া নদীর তীরে সন্তোষদি চরে দা নিয়ে হোগলা পাতা কাটতে যান। এ সময় নদীতে উঁচু জোয়ার চলছিল।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. হ‌ুমায়ূন কবির বলেন, খবর শুনে তিনিও ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। হোগলা পাতা কাটার সময় হাচিনা বেগম জোয়ারের পানির চাপে হয়তো মাটিতে দাঁড়িয়ে থাকতে পারেননি। স্থানীয় ব্যক্তিরা তাঁকে তাৎক্ষণিক দুমকি উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

দুমকি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মেহেদী হাসান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন