default-image

মাদারীপুরে পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন মোটরসাইকেলে থাকা আরও দুই আরোহী। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে মাদারীপুর-শরীয়তপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের মাদারীপুর নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ওই স্কুলছাত্রের নাম রিফাত হাওলাদার (১৬)। সে শহরের কুকরাইল এলাকার দেলোয়ার হাওলাদারের ছেলে। রিফাত শহরের শহীদ বাচ্চু উচ্চবিদ্যালয়ে দশম শ্রেণিতে পড়ত। ওই দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিরা হলেন শহরের কুকরাই এলাকার আনোয়ার হাওলাদারের ছেলে আল-আমিন হাওলাদার (২০) ও শরীফবাড়ি এলাকার হানিফ হাওলাদারের ছেলে সম্রাট হাওলাদার (১৮)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, একটি মোটরসাইকেল শহরের ইটেরপুল থেকে তিন আরোহী নিয়ে মস্তফাপুরের দিকে যাচ্ছিল। মোটরসাইকেলটি যখন নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আসে, তখন একটি পিকআপ ভ্যান মহাসড়কের বিভাজকের ফাঁকা দিয়ে ঘুরাচ্ছিল (ইউটার্ন)। হঠাৎ পিকআপ ভ্যানটি ইউটার্ন করায় পিছন থেকে আসা দ্রুতগতির মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পিকআপটির নিচে ঢুকে যায়। মুহূর্তেই দুমড়েমুচড়ে যায় মোটরসাইকেলটি। গুরুতর আহত হন মোটরসাইকেলে থাকা তিন আরোহী।

বিজ্ঞাপন

পরে ফায়ার সার্ভিসের প্রতিনিধিদল দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যায় রিফাত। গুরুতর আহত আল-আমিনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান চিকিৎসক। এ ছাড়া আহত সম্রাটকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) নুরুল ইসলাম বলেন, দুর্ঘটনায় আহত তিনজনের মধ্যে একজন মারা গেছে। মাথায় গুরুতর আঘাত ও প্রচণ্ড রক্তক্ষরণের কারণে সে মারা গেছে। বাকি দুজনের মধ্যে একজনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তাঁকে ফরিদপুর মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম মিঞা বলেন, মোটরসাইকেলে তিন আরোহী ছিলেন। আর চালক হিসেবে ছিল রিফাত। পিকআপটি পেছনে কোনো যানবাহন আছে কি না, এসব খেয়াল না করেই ইউটার্ন করতে যায়। এ সময় দ্রুতগতিতে আসা মোটরসাইকেলটি সজোরে পিকআপটির মাঝখানে আঘাত করে। মোটরসাইকেলটির অর্ধেকটা পিকআপটির ভেতরে ঢুকে যায়। ওই পিকআপ জব্দ করা হয়েছে, তবে চালক পলাতক।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন