নওগাঁয় শীতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। শিশুপুত্রকে একটু উষ্ণতা দেওয়ার জন্য চাদর দিয়ে নিজের পিঠে বেঁধে নিয়েছেন ফুলমনি উড়াও। আজ বুধবার বিকেলে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার পূর্ব গোসাইপুর গ্রামে
নওগাঁয় শীতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। শিশুপুত্রকে একটু উষ্ণতা দেওয়ার জন্য চাদর দিয়ে নিজের পিঠে বেঁধে নিয়েছেন ফুলমনি উড়াও। আজ বুধবার বিকেলে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার পূর্ব গোসাইপুর গ্রামেপ্রথম আলো

নওগাঁয় আজ বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি রেকর্ড করা হয়েছে। জেলায় শুরু হয়েছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় জেঁকে বসেছে শীত। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকেই কনকনে ঠান্ডা বাতাসের সঙ্গে বৃষ্টির মতো কুয়াশা ঝরছে। কনকনে শীতে নাকাল হয়ে পড়েছে জনজীবন।

নওগাঁর বদলগাছি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকাল ছয়টায় নওগাঁয় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বেলা তিনটায় জেলার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৪ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সন্ধ্যা ছয়টায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

নওগাঁয় আজ বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি রেকর্ড করা হয়েছে। জেলায় শুরু হয়েছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ।

বদলগাছি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের কর্মকর্তা ফেরদৌস মাহমুদ বলেন, সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রার ব্যবধান কমে যাওয়া তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। ঘন কুয়াশার সঙ্গে উত্তরের হিমেল বাতাস হওয়ায় গত সোমবার থেকেই তাপমাত্রা নিম্নমুখী হতে শুরু করে। গতকাল নওগাঁয় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়—১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বিজ্ঞাপন

নওগাঁয় ঘন কুয়াশার সঙ্গে উত্তরের হিমেল বাতাসে মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে। বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। গতকাল থেকেই দিনে কিছুক্ষণের জন্য রোদের দেখা মিললেও হিমেল বাতাসের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে উত্তাপ ছড়াতে পারছে না সূর্য। এ কারণে দিনভর শীতে জবুথবু থাকতে হচ্ছে।

default-image

নওগাঁ শহরের তাজের মোড় এলাকায় আজ সন্ধ্যা ছয়টার দিকে কথা হয় রিকশাচালক খবির উদ্দিনের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘দিনের বেলা হাওয়া কম থাকায় জাড় কম আছিল। কিন্তু সাঁঝের বেলা থ্যাকে হাওয়া আরও ব্যাড়ে গ্যাছে। জাড়ে (শীতে) একেবারে কাবু হয়ে গেনু। দুই দিন ধর‌্যা ব্যাপক জাড় পড়ছে। ইকশা (রিকশা) চালানাই কঠিন হয়্যা পড়ছে।’

মন্তব্য করুন