বিজ্ঞাপন
অর্ধেক যাত্রী নিয়েই লঞ্চগুলো পাটুরিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসছে। যাত্রীই তো তেমন নাই আজ, বেশি যাত্রী উঠবে কীভাবে?
নুরুল আনোয়ার, তত্ত্বাবধায়ক, দৌলতদিয়া লঞ্চঘাট মালিক সমিতি

দৌলতদিয়া থেকে মাগুরাগামী লোকাল বাসের চালক বিপ্লব পাল বলেন, গত ঈদে গাড়ি পূর্ণ হতে বেশি সময় লাগেনি। তবে এবার যাত্রীর চাপ কম থাকায় অনেকক্ষণ অপেক্ষা করতে হচ্ছে। অনেকে আগেভাগে বাড়ি চলে যাওয়ায় যাত্রী তেমন নেই। এদিকে ঈদের বাজার হওয়ায় সবাই যাত্রী একটু বেশি নিচ্ছেন বলে স্বীকার করেন তিনি।

তবে দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটের মালিক সমিতির তত্ত্বাবধায়ক নুরুল আনোয়ার বলেন, ‘অর্ধেক যাত্রী নিয়েই লঞ্চগুলো পাটুরিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসছে। যাত্রীই তো তেমন নাই আজ, বেশি যাত্রী উঠবে কীভাবে? যে যাত্রী আসছে, তার চেয়ে গণপরিবহনই বেশি। ঘাটে এসে কোনো যাত্রীর নদী পারের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে না।’ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে মোট ৩৪টি লঞ্চ সার্বক্ষণিক চলাচল করছে বলে জানান তিনি।

ঈদ উপলক্ষে দৌলতদিয়া ঘাটে ১৩টি অস্থায়ী, ৩টি স্থায়ী কাউন্টারসহ ১৬টি কাউন্টার রয়েছে। এই কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করছেন ঘরমুখী যাত্রীরা।

ফরিদপুরগামী এক নারী যাত্রী বলেন, ‘প্রতিবছর ঈদে বেশ দুর্ভোগ হয়। এবার বাড়ি যেতে তেমন কোনো দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে না। দৌলতদিয়া ঘাটেও অনেক সময় ধরে গাড়িতে উঠে বসে আছি। যাত্রী না থাকার কারণে গাড়ি ছাড়ছে না।’ তবে যানজট কিংবা আসনসংকট না থাকলেও সব জায়গায় অতিরিক্ত ভাড়া গুনতে হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

দৌলতদিয়া বাস টার্মিনাল–সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঈদ উপলক্ষে দৌলতদিয়া ঘাটে ১৩টি অস্থায়ী, ৩টি স্থায়ী কাউন্টারসহ ১৬টি কাউন্টার রয়েছে। এই কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করছেন ঘরমুখী যাত্রীরা। কাউন্টারের পাশাপাশি ভাড়ায়চালিত প্রাইভেট কার, মাইক্রোবাস, অটোরিকশা, টেম্পোসহ বিভিন্ন ধরনের ইঞ্জিনচালিত যানবাহনে মানুষ যাতায়াত করছেন।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক শিহাব উদ্দিন বলেন, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৫টি ছোট-বড় ফেরি চলাচল করছে। নদী পারাপারে যানবাহনগুলোর কোনো সমস্যা হচ্ছে না। এখন গরুবাহী ট্রাকের তেমন চাপ নেই। সকালের দিকে যাত্রীর চাপ কম ছিল। তবে দুপুরের পর থেকে যাত্রীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। আজ যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাকের সারি থাকলেও দুই দিন আগের মতো এসব যানবাহনকে বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে না।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন