বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক আছে। তবে ফেরিতে শুধু পণ্যবাহী ট্রাক, জরুরি অ্যাম্বুলেন্স, রোগী ও লাশ বহনকারী গাড়ি পার করা হচ্ছে। বেলা ১১টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাটে গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আজিজুল হক খান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রফিকুল ইসলাম, গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল তায়াবীরসহ উপজেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের তৎপরতা দেখা যায়।

ফেরিঘাটে লোকজন নিয়ে দোকান সরানোর কাজ করছিলেন জিলাল ব্যাপারী। তিনি বলেন, কঠোর বিধিনিষেধে চায়ের দোকান বন্ধ রাখতে হচ্ছে। এ ছাড়া নদীর পানি বাড়ায় সমস্যা হচ্ছে। তাই দোকান সরিয়ে নিচ্ছেন।

default-image

ফেরিঘাট এলাকায় টহলরত গোয়ালন্দ ঘাট থানার এসআই মিজানুর রহমান আকন্দ বলেন, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী, ভোর থেকে দায়িত্বে আছেন। ভোরে কিছু অটোরিকশা দেখা যায়। পরে চালকদের বুঝিয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ঘাট এলাকায় এখন পুলিশ ও সাংবাদিক ছাড়া কাউকে দেখা যাচ্ছে না।

দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ফেরিঘাট এলাকায় কর্তব্যরত বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) টার্মিনাল তত্ত্বাবধায়ক শওকত আলী বলেন, বর্তমানে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ১৪টি ফেরি চলছে। পণ্যবাহী ও জরুরি গাড়ি পারাপারে এসব ফেরি চালু রাখা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন