default-image

সুনামগঞ্জের ধরমপাশা উপজেলার একটি মার্কেটে গতকাল সোমবার রাত দেড়টার দিকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। মার্কেটটি পাইকুরাটি ইউনিয়নের বাদশাগঞ্জ সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের খেলার মাঠের পাশে অবস্থিত। আগুনে মার্কেটের সাতটি দোকানের সব কটি পুড়ে গেছে।

ক্ষতিগ্রস্ত কয়েকজন ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, দোকানগুলোতে ডেকোরেটরস, কাঠ ও আসবাব তৈরি, মুঠোফোনের যন্ত্রাংশ, কোচিং সেন্টার ও সেলুন ব্যবসা করা হতো। এখানে দুটি পরিবারও থাকত। আগুনের উত্তাপ টের পেয়ে কক্ষগুলোর ভেতরে থাকা লোকজন দ্রুত বের হন। পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষকে জানালে তাৎক্ষণিকভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে রাত আড়াইটার দিকে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলা থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল সেখানে যায়।

দলটি আসার আগেই সবকিছু আগুনে পুড়ে যায়। দোকানঘর থেকে দ্রুত বের হতে গিয়ে দুলাল মিয়া নামের ডেকোরেটরসের ব্যবসায়ী আহত হন। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে এলাকার লোকজন প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন।

বিজ্ঞাপন

দুলাল মিয়া বলেন, ‘বেশ কিছু টাকা ঋণ করে ব্যবসাটি দাঁড় করিয়েছিলাম। এখন আমার সব স্বপ্ন তছনছ হয়ে গেছে। খাবই কী, মানুষের দেনাই কীভাবে পরিশোধ করব।’ কাঠ ও আসবাবের ব্যবসায়ী লিটন মিয়া দাবি করেন, আগুনে তাঁর দোকানের প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কাঠ ও কাঠের তৈরি মালামাল পুড়ে গেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মুনতাসির হাসান আজ মঙ্গলবার প্রথম আলোকে বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে সহায়তার জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন