default-image

সুনামগঞ্জের ধরমপাশায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৩ নেতার বিরুদ্ধে প্রায় ২৩ শতাংশ সরকারি জায়গা দখলের অভিযোগ উঠেছে। দুজন আগেই ওই খাসজমিতে ভবন তুলেছেন। অপরজন এখন ভবন নির্মাণের কাজ করছেন।

উপজেলা প্রশাসন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ধরমপাশার সুখাইড় রাজাপুর উত্তর ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামে প্রায় ২৩ শতাংশ খাসজমি রয়েছে। সেখানে পাকা ভবন নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ধরে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক জাকির হোসেন ও কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য খোরশেদ আলম এ ছাড়া কার্যনির্বাহী কমিটির অপর সদস্য মকবুল হোসেন একই গ্রামে খাসজমিতে একটি পাকা ভবন নির্মাণের কাজ করছেন। মাসখানেক আগে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আবু তালেব ওই গ্রামে যান। এ সময় তিনি বেদখলে থাকা ২৩ শতাংশ সরকারি জমি চিহ্নিত করেন। একই সঙ্গে নতুন ভবন নির্মাণের কাজটি বন্ধ করে দেন। প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মকবুল হোসেন ভবন নির্মাণের কাজ চালিয়ে আসছেন।

আওয়ামী লীগ নেতা জাকির হোসেন বলেন, ‘আমি যেখানে বসবাস করছি, সেই ভবনটির সামনে সরকারি কিছু জায়গা রয়েছে। সরকারি জায়গায় ভবনের কিছু অংশ পড়ে থাকলে সরকার যখনই চাইবে, তখনই আমি তা ছেড়ে দেব।’

উপজেলা ভূমি কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু তালেব বলেন, দ্রুতই ওই গ্রামে অভিযান চালিয়ে সরকারি জায়গায় নির্মাণাধীন ভবনটি ভেঙে ফেলা হবে। সরকারি জমিতে আগেই নির্মাণ করা ভবন দুটি উচ্ছেদ করার জন্য বিধি মোতাবেক উচ্ছেদ মামলা করা হবে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন