বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার মহদীপুর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, ওই গ্রামের ইপিআই টিকাদানকেন্দ্রটিতে ১০ জন করোনার টিকা নিতে এসেছেন। তাঁরা সিনোভ্যাকের (ভেরোসেল) প্রথম ডোজ নিচ্ছেন। টিকা নিতে আসা এসব নারী-পুরুষের মুখে মাস্ক ছিল না।

ওই টিকাদানকেন্দ্রটির দায়িত্বে থাকা স্বাস্থ্য সহকারী শীলা রানী সরকার বলেন, এই ইপিআই কেন্দ্রে করোনাভাইরাস রোধে ৮০ ভায়াল সিনোভ্যাক (ভেরোসেল) টিকা দেওয়া হয়েছে। আশপাশের বেশির ভাগ মানুষ বেশ আগেই কোভিডের টিকা নিয়েছেন। দুপুর ১২টার দিকে যে ১০ জন করোনার টিকা নিয়েছেন, তাঁদের মধ্যে আটজনই নারী।

উপজেলার সদর ইউনিয়নের মহদীপুর গ্রামের গৃহিণী মাজেদা বেগম (৪০) বলেন, ‘টিকা দিতে গিয়া আমার কুনু সমস্যা অইছে না।’

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, ধর্মপাশার ১০টি ইউনিয়নের ২৪০টি ইপিআই টিকাদানকেন্দ্রে করোনার টিকা দেওয়া হবে। আজ সোমবার সকাল নয়টা থেকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের হলিদাকান্দা বাবুল মিয়ার বাড়ির ইপিআই কেন্দ্র, মহদীপুর গ্রামের ময়না মিয়ার বাড়ির ইপিআই কেন্দ্রে, ধর্মপাশা সদর ইউনিয়নের ধর্মপাশা গ্রামে রফিকুল হাসান চৌধুরীর বাড়ির ইপিআই কেন্দ্রে এবং উপজেলার সুখাইড় রাজাপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের রওশন আলী বাড়ির ইপিআই কেন্দ্রে করোনার প্রথম ডোজ দেওয়া কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ১৮ বা তদূর্ধ্ব সুস্থ নারী-পুরুষকে জাতীয় পরিচয়পত্র ও জন্মনিবন্ধন দেখানোর পরিপ্রেক্ষিতে টিকা দেওয়া হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এমরান হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, আজ থেকে দুই মাসব্যাপী টিকাদান কর্মসূচির কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে উপজেলার ২৪০টি ইপিআই কেন্দ্রে করোনার টিকা দেওয়া হবে। এ ছাড়া ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের টিকাদানের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

এমরান হোসেন আরও বলেন, ৫ জানুয়ারি এ উপজেলায় ইউপি নির্বাচন। তাই জনপ্রতিনিধিরা নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। এ জন্য বিষয়টি তাঁদের অবগত করা হয়নি। তবে স্বাস্থ্যকর্মীদের দিয়ে প্রচারণা চালানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন