বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মুনতাসির হাসান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এ বিলকিস, উপজেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক আরিফুর রহমান মজুমদার, ধর্মপাশা সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সাবেক চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম চৌধুরী, সুখাইড় রাজাপুর দক্ষিণ ইউপির চেয়ারম্যান মোকাররম হোসেন, সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপসহকারী প্রকৌশলী ও উপজেলা কাবিটা প্রকল্প বাস্তবায়ন এবং পর্যবেক্ষণ কমিটির সদস্যসচিব মো. ইমরান হোসেন, উপসহকারী প্রকৌশলী মো. জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ইউপির চেয়ারম্যান মোকাররম হোসেন বলেন, উপজেলার চন্দ্রসোনার থাল হাওরের ধান কাটা দুই দিন আগে শেষ হয়েছে। এখন হাওরে পানি ঢুকলেও কোনো ক্ষতি হবে না।

ইউএনও মো. মুনতাসির হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ওই হাওরের বোরো ধান কাটা ইতিমধ্যে শেষ হয়ে গেছে। তাই নদ-নদীর পানি হাওরের প্রবেশ করিয়ে মাছের প্রজননের জন্য জলকপাট খুলে দেওয়া হয়েছে। এতে শুধু ওই হাওরই নয়, আশপাশের কোনো হাওরের বোরো ধানের কোনো রকম ক্ষতি হবে না।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন