default-image

সিলেটে তরুণী এবং খাগড়াছড়িতে প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে সুনামগঞ্জে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন জেলা ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা। তবে পুলিশের বাধার কারণে মাঝপথে মিছিল থামিয়ে সমাবেশ করতে হয়েছে তাঁদের। তবে পুলিশ বলছে, তারা মিছিলে কোনো বাধা দেয়নি।

জেলা ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা জানান, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে প্রতিবাদ মিছিল করেন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। এতে সংগঠনের বিভিন্ন শাখা থেকে নেতা-কর্মীরা এসে যোগ দেন। মিছিলটি শহরের আলফাত স্কয়ারে যেতে চাইলে পুলিশ কামারখাল এলাকায় বাধা দেয়। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন তাঁরা।

সমাবেশে বক্তব্য দেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহসাংগঠিক সম্পাদক মো. রায়হান উদ্দিন, জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম, সদস্যসচিব তারেক মিয়া, জেলা শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক সুমিত ইসলাম, হাবিবুর রহমান, ইজাজুল হক চৌধুরী, হুসিয়ার আলম প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

বক্তারা বলেন, সরকারের প্রশ্রয়ে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। এমন কোনো অপকর্ম নেই তাঁরা করছেন না। তাঁদের কাছে নারী, শিশু কেউই নিরাপদ নেই। খুন, গুম, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, দখলবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে মানুষ আজ অতিষ্ঠ। এসবের বিরুদ্ধে দেশের মানুষকে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

সমাবেশ শেষে জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম পুলিশি বাধার অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরা পুরাতন বাসস্ট্যান্ড থেকে মিছিল নিয়ে শহরের আলফাত স্কয়ার এলাকায় যেতে চেয়েছিলাম। কিন্তু মিছিল শুরুর কয়েক মিনিটের মধ্যেই পুলিশ বাধা দেয়। এরপর আমরা বাধ্য হয়ে কামারখাল এলাকায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে কর্মসূচি শেষ করি।’

জানতে চাইলে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সহিদুর রহমান বলেন, ‘আমার তাঁদের মিছিলে বাধা দিইনি। তাঁরাই কামারখাল এলাকায় এসে মিছিল শেষ করেছে।’

মন্তব্য করুন